Don't Miss
হোম / রাজনীতি / মালদ্বীপের রাজনীতির মূল মঞ্চে ফিরছেন নাশিদ

মালদ্বীপের রাজনীতির মূল মঞ্চে ফিরছেন নাশিদ

মালদ্বীপের রাজনীতির মূল মঞ্চে ফিরছেন নাশিদ

এক দশক আগে মালদ্বীপের প্রথম গণতান্ত্রিক নির্বাচনে ক্ষমতায় আসা এবং বর্তমানে স্বেচ্ছানির্বাসনে থাকা বিরোধীদলীয় নেতা মোহাম্মদ নাশিদ দেশটির সংকটে আবারও নতুন করে রাজনীতির মূল মঞ্চে ফিরছেন। তিন দশক বা এশিয়ায় সবচেয়ে দীর্ঘ সময় ধরে ক্ষমতায় থাকা মামুন আবদুল গাইয়ুমকে ২০০৮ সালের নির্বাচনে পরাজিত করে ইতিহাস রচনা করেছিলেন নাশিদ। সাগরের উচ্চতা বাড়তে থাকায় ভারত মহাসাগরের নিচু দ্বীপপুঞ্জগুলো ঝুঁকির মুখে রয়েছে উল্লেখ করে জলবায়ু পরিবর্তনের বিরুদ্ধে সরব অবস্থান তুলে আন্তর্জাতিক বিশ্বের সুনাম কুড়িয়েছিলেন তিনি। কিন্তু ২০১৫ সালে ‘রাজনৈতিক উদ্দেশ্যপ্রণোদিত’ সন্ত্রাসবাদের অভিযোগে অভিযুক্ত হওয়ার পর সেই নাশিদই আবার দীর্ঘ সময় ধরে রয়েছেন স্বেচ্ছানির্বাচনে।

মোহাম্মদ নাশিদের ‘বিশৃঙ্খলময়’ কারাজীবন ও রাজনৈতিক জীবনের কারণে তাঁকে তুলনা করা হয় দক্ষিণ আফ্রিকার গণতান্ত্রিকভাবে নির্বাচিত প্রথম প্রেসিডেন্ট নেলসন ম্যান্ডেলার সঙ্গে।

গত সপ্তাহে মালদ্বীপের সুপ্রিম কোর্ট সন্ত্রাসবাদে জড়িত অভিযোগে কারাবন্দী বিরোধীদলীয় নয়জন নেতাকে মুক্তির আদেশ দেন। তাঁদের মধ্যে বিদেশে স্বেচ্ছানির্বাসনে থাকা দেশটির সাবেক প্রেসিডেন্ট মোহাম্মদ নাশিদও রয়েছেন। কিন্তু ইয়ামিনের সরকার আদালতের এ আদেশ প্রত্যাখ্যান করলে শুরু হয় রাজনৈতিক-সংকট। প্রেসিডেন্ট আবদুল্লাহ ইয়ামিনকে অপসারণে এগিয়ে আসতে ভারত ও যুক্তরাষ্ট্রের প্রতি আহ্বান জানান নাশিদ। আর এসবের মধ্য দিয়ে নাশিদ দেশটির রাজনীতির মূল মঞ্চে আবারও আবির্ভূত হলেন।

এদিকে গত মঙ্গলবারই আবার মালদ্বীপের সর্বোচ্চ আদালত নয়জন রাজনীতিককে মুক্তি দেওয়ার আদেশ প্রত্যাহার করে নিয়েছেন।

২০০৩ সালে নাশিদ গঠন করেন মালদ্বীভিয়ান ডেমোক্র্যাটিক পার্টি, বর্তমানে এটি দেশটির মূল বিরোধী দল। ২০০৫ সালে তিনি দেশে ফিরেন। তিনি তিন বছর পর দেশটির প্রেসিডেন্ট নির্বাচিত হন। কার্বন নিঃসরণ কমিয়ে আনতে বিশ্বকে উদ্যোগ নেওয়ার জন্য সমুদ্রের তলদেশে মন্ত্রিসভার বৈঠক করেছিলেন নাশিদ।

একজন বিচারককে বরখাস্ত করাকে কেন্দ্র করে প্রতিবাদ বিক্ষোভের জেরে ২০১২ সালে পদত্যাগ করেন তিনি। এক বছর পরে বিতর্কিত মধ্যবর্তী নির্বাচনে নাশিদ তাঁর পুরোনো শত্রু মামুন আবদুল গাইয়ুমের সৎ ভাই ইয়ামিনের কাছে পরাজিত হন। দেশে ফিরলেই গ্রেপ্তার হতে পারেন তিনি। তা সত্ত্বেও ২০১৭ সালের শুরুতে শ্রীলঙ্কার কলম্বো থেকে নাশিদ ঘোষণা করেন, চলতি বছরে অনুষ্ঠেয় প্রেসিডেন্ট নির্বাচনে ইয়ামিনের বিরুদ্ধে লড়তে চান তিনি।

উত্তর দিন

মন্তব্য করুন!

  Subscribe  
এর রিপোর্ট করুন